Breaking News

ট্রেডিং শিখুন ট্রেডিং করুন eToro app দিয়ে নিজের দক্ষতা যাচাই করুন।


আমাদের ধারাবাহিক পর্বে আজকে যে ক্রিপ্টোকারেন্সি বিষয়ক অ্যাপ্লিকেশনটি নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি সেটা নিতান্তই অসাধারণ একটি অ্যাপ্লিকেশন। বর্তমানে শেয়ার মার্কেটে যেসকল ট্রেড করা হয় তার সবগুলোই থাকে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ। অর্থাৎ আপনাকে হয় এখান থেকে লাভ করতে হবে আর না হয় তো লস দিয়ে আসতে হবে। এই প্রচলিত কথাটায় চলে আসছিল এতদিন ধরে। কিন্তু সম্প্রতি এমন কিছু প্লাটফর্ম তৈরি হয়েছে শেয়ার মার্কেট বা ক্রিপ্টো ট্রেড মার্কেট কেন্দ্রিক যেগুলো আপনাকে এই ঝুঁকি টা কিছুটা কমিয়ে দিতে পারে অনেকটা অনুশীলন, অনুকরণ, দক্ষতার মাধ্যমে। অর্থাৎ এসব প্লাটফর্ম এমন কিছু গাইডলাইনস তৈরি করে যা নতুনদের ক্রিপ্টো দুনিয়াতে পা রাখার আগেই স্টক মার্কেট বা ক্রিপ্টো ট্রেড সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা দিয়ে থাকে। ফলে নতুনদের জন্য ট্রেড মার্কেট পারফর্ম করা অনেকটা সহজ হয়ে যায়। তেমনি একটি প্লাটফর্ম হচ্ছে ইটোরো। বর্তমানে  ক্রিপ্টো ট্রেডারদের মাঝে  eToro smart crypto trading made easy এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। তাই আজ আমরা এই অ্যাপ্লিকেশনটির ফিচারস সম্পর্কে জানব আর এটি আপনি কেন ব্যবহার করবেন বা এটি ব্যবহারে কি উপকারিতা পাবেন সেসব কিছুই আলোচনা করব আজকের এই আর্টিকেলে। 


অ্যাপ্লিকেশনটির নামঃ (App name)

eToro smart crypto trading made easy নামের এই এই অ্যাপ্লিকেশনটির মোবাইল ভার্সন এবং ওয়েব ভার্শন দুটিই রয়েছে। তাই আমরা মোবাইল ভার্সন অর্থাৎ অ্যাপ সম্পর্কে আলোচনা করব। অ্যাপে যে সকল ফিচারস রয়েছে তার সবকিছুই ওয়েব ভার্শনেও রয়েছে। ১৪৪ টিরও বেশি দেশে প্রায় কয়েক লক্ষ ব্যবহারকারী বর্তমানে eToro সেবা নিচ্ছে। ৪.১ রেটিং নিয়ে অ্যাপ্লিকেশনটি এক কোটিরও বেশি ইনস্টল করা হয়েছে। রয়েছে শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং আপনার গোপনীয়তা রক্ষা করার প্রতিশ্রুতিও। এছাড়া প্রতিনিয়ত প্লাটফর্মটি FCA and Cysec ধারা নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। বর্তমানে প্ল্যাটফর্মটিতে ৩৫ কোটিরও বেশি ট্রেড খোলা হয়েছে।


এবার অ্যাপ্লিকেশনটির ফিচারস সমূহ নিয়ে আলোচনা করা যাকঃ


হোমঃ (Home)

এখানে রয়েছে নিউজ ফিড মানে অর্থনৈতিক বাজারের সমাচার। অনেকটা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের মত। এখানে ইনভেস্টর বা ট্রেডাররা নিয়মিত মন্তব্য করে থাকে। এছাড়াও মার্কেটে যেসকল প্লাটফর্ম গুলো পারফর্ম করছে সেগুলো অটোমেটিক ভাবে পোস্ট আকারে আপনার নিউজ ফিডে চলে আসতে থাকবে। চাইলে আপনিও উক্ত নিউজফিডে মন্তব্য করতে পারেন।


ওয়াচ লিস্টঃ (Watchlist)

এখানে আপনি বড় থেকে ছোট সব ধরনের মার্কেট গুলো পাবেন । যেমন পাশে থাকা ফিল্টার  অপশনটিতে ক্লিক করলে আপনি প্রথমে দেখতে পাবেন কারেন্সিজ (Currencies)। এই অপশন থেকে আপনি সকল ধরনের কারেন্সি অর্থাৎ যে সকল কারেন্সিতে ট্রেড করা করা যায় তার সবগুলোই পেয়ে যাবেন যেমন: EURUSD, GBPUSD, NZDUSD, USDCAD, USDJPY  সহ আরো অনেক।


এরপরে ক্রিপ্টো অপশনটিতে ক্লিক করলে সকল ধরনের ক্রিপ্টোকারেন্সি গুলোর মার্কেট আপনি এখানে পাবেন যেমন: BTC, ADA, ETH, LTC, XRP সহ আরো অনেক।

আপনি চাইলে স্বর্ণ, তেল, সিলভার, কপার এই সকল মার্কেটে ইনভেস্ট করে ট্রেড করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে কমডিটিজ ( Commodities) অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে আর এখানে আপনি যে মার্কেটগুলো পাবেন সেগুলো হচ্ছে: OIL, GOLD, SILVER, COTTON, NICKEL সহ আরো অনেক পণ্যের বাজার।

এছাড়াও আপনি এখান থেকে বিভিন্ন সূচকেও ইনভেস্ট করে ট্রেড করতে পারেন এর জন্য আপনাকে ইন্ডেসিস (Indices) অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে এখানে আপনি যে সূচকগুলো পাবেন সেগুলো হচ্ছে: USDOLLAR, CHINA50, SPX500, UK100, AUS200 সহ আরো অনেক।

এরপরে অপশনটি অর্থাৎ স্টকস (Stocks) অপশনটিতে ক্লিক করলে আপনি বড় বড় সব স্টক মার্কেট পাবেন। চাইলে আপনি উক্ত স্টকগুলোতে ইনভেস্ট করতে পারেন। এখানে মোটামুটি ছোট থেকে বড় সবগুলো স্টক মার্কেটই রয়েছে। স্টক মার্কেটে এখানে দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে একটি হচ্ছে একচেঞ্জ (Exchange) আরেকটি ইন্ডাস্ট্রিস (Industries), একচেঞ্জে আপনি পাবেন বিভিন্ন দেশের একচেঞ্জ প্লাটফর্ম গুলো যেমন মাদ্রিদ, সৌদ্‌ স্টকহোম, প্যারিস, ইত্যাদি আর ইন্ডাস্ট্রিস অপশনে আপনি বেসিক মেটেরিয়ালস থেকে শুরু করে ফিন্যান্সিয়াল, হেলথকেয়া্‌ ইন্ডাস্ট্রিয়াল সার্ভিস, টেকনোলজি ইত্যাদি বিষয়য়ক স্টক মার্কেট গুলো পেয়ে যাবেন যেমন: টেসলা, অ্যামাজন, অ্যাপল, গুগোল, ফাইজার, মাইক্রোসফট, ফেসবুক ইত্যাদি।

পিপল (People) অপশনটি থেকে আপনি চাইলে ইনভেস্টরদের খুঁজে বের করতে পারেন। আবার আপনি চাইলে একসাথে অন্য ইনভেস্টরদের সাথে ট্রেড করতে পারেন। আপনার পছন্দের ইনভেস্টর কে খুঁজে পেতে ডিসকভার পিপল (Discover people)  অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে। এরপর ফিল্টার অপশন থেকে খুঁজে বের করে নিতে হবে।

এছাড়াও সেটিংস  অপশনটি থেকে আপনি চাইলে বাই ডিফল্ট নিচ থেকে সবকিছু সেট করে নিতে পারেন। আপনি চাইলে শুধু ক্রিপ্টোকারেন্সি তে নয় বরং আরো অন্যান্য সেক্টরও এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে ইনভেস্ট করে ট্রেড করতে পারেন।


পর্টফলিওঃ (Portfolio)

আপনি যদি ইটোরো তে এখনও কোন ট্রেড না করে থাকেন তবে এই অপশনটি সম্পূর্ণ খালি অবস্থায় দেখতে পাবেন। এখানে মূলত আপনার ট্রেডকৃত অতীত রেকর্ড গুলো দেখাবে। এছাড়া আপনার অর্ডার করা ট্রেড গুলো এখানে শো করবে।


ডিসকভারঃ (Discover)

ডিসকভার পেজে গেলে একেবারে উপরের দিকে দেখতে পাবেন কিছু মার্কেট মুভ করছে। এখানে যে মার্কেটগুলো আজকে ভালো অবস্থানে রয়েছে সেগুলোর সবুজ রঙ দ্বারা পার্সেন্টেজ মানে শতাংশ দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ কত শতাংশ লাভ করেছে। আর যেগুলো খারাপ অবস্থানে রয়েছে সেগুলো লাল রঙ দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছে।


একটু নিচের দিকে তাকালে দেখতে পাবেন ব্রাউজ বাই ক্যাটাগরি নামে একটি ফিচার রয়েছে। এখানে যদি আপনি ক্রিপ্টো অপশনটিতে ক্লিক করেন তাহলে ক্রিপ্টো সম্পর্কিত সকল তথ্য আপনার স্ক্রীনে চলে আসবে। যেহেতু আমাদের লেখাটির ক্রিপ্টো বিষয় সম্পর্কিত সেহেতু আমরা ক্রিপ্টো অপশনের মাধ্যমে আলোচনা চালিয়ে যাব। 


বাই মার্কেট ক্যাপ (By market cap) অপশনটিতে আপনি ক্রিপ্টো কারেন্সিগুলো বাজারে দরপতন বা উঠানামা দেখতে পাবেন। এছাড়াও আপনি যেকোন একটি কয়েন এ ক্লিক করলে সেটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন যেমন ইথারিয়াম সম্পর্কিত আপটুডেট অর্থাৎ প্রতি মিনিটের নিউজ, স্ট্যাটিসটিকস, চার্ট, রিসার্স ইত্যাদি  দেখতে পাবেন। পাশে একটা নীল কালারের ট্রেড ( Trade) অপশন দেখতে পাবেন। আপনি চাইলে এটাতে ক্লিক করে ওই কারেন্সিতে ট্রেড করতে পারেন। তবে এর জন্য আপনার একাউন্টে নির্দিষ্ট পরিমান ফান্ড থাকা চাই।

 

ডেইলি মোবার (Daily Movers) এই অপশন থেকে গত ২৪ ঘন্টায় যে ক্রিপ্টো গুলো ভালো পারফর্ম করেছে তাদের লিস্ট সেখানে দেখতে পাবেন।

ক্রিপ্টো ফোকাসড (Crypto Focused) এই ফিচারস থেকে আপনি সেরা ইনভেস্টরদের দেখতে পাবেন। আপনি চাইলে তাদের ট্রেড গুলোর অনুকরণ করতে পারেন। এছাড়াও আরো অনেকগুলো ফিচার রয়েছে  ভবিষ্যতে কোনো একসময় তা নিয়ে আলোচনা করব ইনশাল্লাহ।

 

উপরে বা পাশে থ্রি লাইন বাটনে ক্লিক করলে কিছু অপশন দেখতে পাবেন Settings, Withdraw funds এবং Deposit funds


সেটিংসঃ (Settings)

এখানে আপনি অনেকগুলো ফিচারস পাবেন। জেনারেল ( General) অপশন থেকে ডিফল্ট পেজ সেটআপ করতে পারবেন। এছাড়া ভাষা, লোকাল কারেন্সি এগুলো পরিবর্তন করতে পারবেন।

অ্যাকাউন্ট ( Account) অপশন থেকে আপনার নাম, ইমেইল, এবং অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্ট ইত্যাদি দেখতে পাবেন বা পরিবর্তন করতে পারবেন।

ট্রেডিং (Trading) অপশন  থেকে পর্টফলিও স্ক্রীন বাই ডিফল্ট পরিবর্তন করতে পারবেন। এছাড়াও One-click ট্রেডিং ফিচারটি এখানে পেয়ে যাবেন। One-click ট্রেডিং হচ্ছে এই ফিচারটির মাধ্যমে আপনি সহজেই ট্রেডের ধরন জানতে পারবেন। আর অনেক দ্রুত ট্রেড চালু করতে পারবেন।

নোটিফিকেশন (Notification) অপশনটি থেকে আপনি যে সকল বিষয় সম্পর্কে নোটিফিকেশন পেতে চান সেগুলো বন্ধ বা চালু করতে পারেন।

আপনি আপনার সম্পূর্ণ নাম পাবলিকে দেখাতে চান কিনা এবং আপনার একাউন্ট পাবলিক থাকবে কিনা সেটিও চাইলে প্রাইভেসি ( Privacy) অপশন থেকে পরিবর্তন করতে পারবে।


ইটরো তে যেভাবে ফান্ডস ডিপোজিট এবং উইথড্র করবেনঃ (How to withdraw and deposit funds on the eToro app?)

ডিপোজিট করার জন্য Deposit funds অপশনটিতে ক্লিক করুন। অ্যামাউন্ট এর জায়গায় যত ডিপোজিট করতে চান সেটি লিখুন। পেমেন্ট মেথড গিয়ে কোন মাধ্যমে ফান্ডস ডিপোজিট করতে চান সেটি বাছাই করুন। এখানে আপনি ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড, পেপাল, স্ক্রিল, ব্যাংক ট্রান্সফার এবং নেটেলার এর সাহায্যে ফান্ড ডিপোজিট করতে পারবেন। সবকিছু ঠিকমতো বসানো হয়ে গেলে ডিপোজিট অপশনটিতে ক্লিক করলেই আপনার ইটরো একাউন্টে নির্দিষ্ট পরিমাণ ফান্ড জমা হয়ে যাবে।

ফান্ড তোলার জন্য Withdraw fund অপশনটিতে ক্লিক করুন। যত তুলতে চান তার পরিমাণ বসান। এরপর কন্টিনিউ (Continue) বাটনে ক্লিক করুন। যে এড্রেসে নিতে চান সেই এড্রেস দিয়ে ফান্ডের জন্য রিকোয়েস্ট পাঠান। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আপনার একাউন্টে ফান্ড পৌছে যাবে।


কেন ব্যবহার করবেন ইটরো (Why you should use eToro)

ইটরো ব্যবহার করার ফলে আপনি বিশ্বের সেরা ফাইন্যান্সিয়াল মার্কেটগুলোতে ট্রেড করার কনফিডেন্স খুঁজে পাবেন। সারা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রায় ২ কোটিরও বেশি ট্রেডারদের সাথে অনলাইনে সম্পৃক্ত থাকতে পারবেন। এছাড়াও যারা সেরা ট্রেডার রয়েছে আপনি চাইলে তাদের অনুসরণ বা অনুকরণ করতে পারেন।

খুব সহজে এখান থেকে ক্রিপ্টো ক্রয় করতে পারবেন। রিস্ক ফ্রি থাকার জন্য ইটরো আপনাকে এক লক্ষ ডলার সমপরিমাণ একটি ভার্চুয়াল পোর্টফলিও দিবে। যেটার মাধ্যমে আপনি আগে থেকে ট্রেডিংয়ে প্র্যাকটিস করে নিতে পারবেন। এ প্লাটফর্ম প্রতিদিন কিভাবে কি করলে ভালো পারফর্মেন্স করা যায় সেসবের নিত্যনতুন উপায় বলে দেবে আপনাকে। পাশাপাশি রয়েছে অনেক শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং আপনার তথ্য গোপনীয়তার বিষয়ে শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদান।


যেভাবে ব্যবহার করবেন ইটরোঃ (Process to use eToro)

গুগল প্লে স্টোর থেকে এপ্লিকেশনটি আপনার ফোনে ইন্সটল করে নিন। ফেসবুক বা ইমেইল দিয়ে সাইন আপ করে নিন। হোমপেজে আসার পর ভেরিফাই একাউন্ট নামে একটা অপশন দেখতে পাবেন। সেটিতে ক্লিক করে কিছু তথ্য এবং ডকুমেন্ট সাবমিট করে একাউন্টি ভেরিফাই করে নিন। এরপর ফান্ড ডিপোজিট করে নিশ্চিন্তে ট্রেড করতে থাকুন।

মনে রাখবেন আপনি যে প্লাটফর্মেই ট্রেড করেন না কেন বিস্তারিত জানার জন্য সবার আগে উক্ত প্লাটফর্মটির টার্ম এবং কন্ডিশন গুলো ভালো করে পড়ে বুঝে নিবেন। এছাড়াও যা কিছুই করবেন সব নিজ দায়িত্বে বুঝে শুনে করবেন। আজ এই পর্যন্তই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন ধন্যবাদ।


No comments