Breaking News

CEX.IO কি? কিভাবে ব্যবহার করব? CEX.IO app review in Bangla

আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়মিত ক্রিপ্টো বিষয়ক অ্যাপ নিয়ে রিভিউ দিয়ে আসছি। এই রিভিউ গুলোর বেশির ভাগই ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ অ্যাপ নিয়ে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকে আমরা এমনই একটি ক্রিপ্টো ক্রয় বিক্রয় এবং এক্সচেঞ্জ অ্যাপ নিয়ে আলোচনা করব। খুব দ্রুত সময়ে ক্রিপ্টো ক্রয় বিক্রয় এবং একচেঞ্জ করা সহ আরো যেসকল সুবিধা রয়েছে তা নিয়েই আজকের আলোচনা। 



অ্যাপ্লিকেশনটির নামঃ (App Name)


CEX.IO নামক অ্যাপ্লিকেশনটি গুগল প্লে স্টোরে রেটিং এর দিক থেকে খুবই নিচে রয়েছে। তবে এটির ওয়েব ভার্শন ব্যাপক হারে ব্যবহার করা হয়। যেহেতু আমাদের আলোচনা অ্যাপ ভিত্তিক তাই আমরা শুধু এই অ্যাপ্লিকেশন নিয়েই আলোচনা করব। ১০ লক্ষ বারের বেশি ইনস্টল হওয়া এই অ্যাপ্লিকেশনটি মাত্র ৩.৪ রেটিং প্লে স্টোরে। তবে অ্যাপ্লিকেশনটির এত নিম্নমানের রেটিং হওয়ার কারণ একটাই, এটির ইউজার ইন্টারফেস অতটা স্মুথ নয়। 



CEX.IO কি? (What is a CEX.IO?)


যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অবস্থিত 2013 সালে প্রতিষ্ঠিত হয় CEX.IO.

CEX.IO হচ্ছে একটি মোবাইল অ্যাপ যেখানে আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সি ক্রয় বিক্রয় এবং একচেঞ্জ করতে পারবেন খুব সহজে এবং দ্রুত উপায়ে।  এখানে ৮০ টিরও বেশী ক্রিপ্টোকারেন্সিতে ট্রেড করতে পারবেন। এছাড়াও ক্রিপ্টোকারেন্সি স্ট্যাকিং এবং ক্রিপ্টো সেভিং সার্ভিস প্রদান করে থাকে এই অ্যাপ্লিকেশনটি। বিটকয়েন বা অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সি কেনার ক্ষেত্রে আপনি ক্রেডিট কার্ড ডেবিট কার্ড ইউজ করতে পারেন এছাড়াও চাইলে CEX.IO এর ব্যালেন্সও ব্যবহার করতে পারেন। এই প্লাটফর্ম থেকে ৮০ টিরও বেশি ক্রিপ্টো কারেন্সি সাপোর্ট করে তাই চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। এই প্লাটফর্মে  সেরা কয়েনগুলোর মার্কেট, রেঞ্জ এমনকি ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স ও ERC20 বিদ্যমান রয়েছে।

আমি এখানে কিছু কয়েন এর নাম বলছি যেগুলো এই প্লাটফর্মে সাপোর্ট করে, বিটকয়েন, ইথারিয়াম, বিটকয়েন ক্যাশ, ড্যাশ, লাইট কয়েন, এক্স আরপি, এক্স এল এম, বেসিক অ্যাটেনশন টোকেন ছাড়াও আরো অনেক। এই প্লাটফরমটি প্রতিদিনই প্রায় নিত্য নতুন কয়েন তাদের মার্কেটপ্লেসে সংযুক্ত করছে।


CEX.IO তে যে সকল সুবিধা সমুহ পাবেনঃ (The benefits of CEX.IO)


CEX.IO তে নিম্ন লিখিত কিছু সুবিধা রয়েছে, যেমনঃ

১. সামান্য কয়েকটি ক্লিক করার মাধ্যমেই ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে অথবা একাউন্টের ব্যালেন্স দিয়ে ক্রিপ্টো ক্রয় করে ফেলতে পারবেন।

২. খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে কয়েন বিক্রি করতে পারবেন এমনকি এক কয়েন থেকে আরেক কয়েনে অদল বদল করতে পারবেন।

৩. কয়েক মিনিটের মধ্যেই ফান্ড ডিপোজিট করতে পারবেন এবং ব্যালেন্স আপনার ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডে উইথড্র করে নিতে পারবেন।

৪. নোটিফিকেশনের মাধ্যমে কয়েন এবং মার্কেট সম্পর্কে আপটুডেট খবর জানতে পারবেন। 

. রিয়েল টাইম বিটকয়েন প্রাইস ডাটাগুলো আপনার একাউন্টে শো করবে এছাড়াও ক্রাকেন , বাইনান্স, কয়েনবেস প্রো প্ল্যাটফর্ম গুলোর তথ্য এখানে তুলনামূলক পার্থক্য আকারে দেখাবে। 

৬. খুব সহজে আপনার ক্রেডিট কার্ড বা ডেবিট কার্ড সংযুক্ত করে নিতে পারবেন।

এগুলো ছাড়াও আরো নানা রকম সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। চলুন এবার আমরা এই অ্যাপ্লিকেশনের ফিচারস বা অপশন গুলো সম্পর্কে জেনে নিই।


অ্যাপ্লিকেশনটির ফিচারস সমূহঃ (Features of CEX.IO)


বাই/সেলঃ (BUY/SELL)

অ্যাপ্লিকেশনে প্রবেশ করলে প্রথমে যে অপশনটি আসবে সেটি হচ্ছে BUY/SELL। এখান থেকে আপনি খুব সহজেই ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে বিটকয়েন সহ ৮০ টিরও বেশি ক্রিপ্টো কারেন্সি ক্রয় করতে পারবেন। একই সাথে এখানে সেল করার অপশনটিও পেয়ে যাবেন। অর্থাৎ আপনি যদি কয়েন সেল করতে চান তাহলে SELL অপশনটি বাছাই করুন।

 

এক্সচেঞ্জঃ (Exchange)

আপনি চাইলে এখান থেকে এক কয়েন থেকে আরেক কয়েন এক্সচেঞ্জ করে নিতে পারবেন। এজন্য আপনাকে শুধু From এবং To অপশন থেকে কি পরিমান কয়েন ক্রয় করতে চান সেটি উল্লেখ করে দিতে হবে এবং Exchange Now তে ক্লিক করে দিলেই কয়েন একচঞ্জ হয়ে যাবে। এছাড়াও সাথে Percentage অপশনটি পেয়ে যাবেন অর্থাৎ কত পার্সেন্ট বা শতাংশ কয়েন ক্রয় করতে চান সেটিও শর্টকাটে উল্লেখ করতে পারবেন।

 

ওয়ালেটঃ (Wallet)

এখানে আপনার ব্যালেন্স দেখাবে অর্থাৎ আপনার এই একাউন্টে যদি কোন কয়েন বা ব্যালেন্স থাকে তাহলে সেটি এখানে শো করবে। যেমন ইথারিয়াম থাকলে ইথারিয়াম এর পাশে কত ইথিরিয়াম রয়েছে সেটা দেখাবে এবং সবগুলো কয়েন এর মোট কত হয়েছে সেটা Estimated total account এ দেখাবে। এছাড়াও এখানে আরো দুটি অপশন পাবেন ডিপোজিট এবং উথড্রয়াল। 

 

ট্রেড প্রোঃ (Trade pro) 

এই অপশনটি ব্যবহার করে ট্রেড করতে পারবেন। এছাড়াও CEX.IO এর মার্কেট প্লেস এবং আপনার ট্রেড করা অর্ডার সমূহ সবকিছু একসাথে এখানে রয়েছে। 

 

কেন CEX.IO ব্যবহার করব? ( Why to use CEX.IO?)


যুক্তরাজ্য সরকার কর্তৃক প্রতিনিয়ত মনিটর করা হয় এ প্লাটফর্মটিকে। এছাড়াও এটি সরকারি লাইসেন্সপ্রাপ্ত এবং এখানে ৮০ টিরও বেশি ক্রিপ্টোকারেন্সিতে ট্রেড করার সুবিধা পাওয়া যায়। ক্রিপ্টো উপার্জন করার সুবিধা পাওয়া যায় এমনকি আপনি চাইলে এখান থেকে ক্রিপ্টো লোনও নিতে পারেন। পেমেন্ট তোলার জন্য অনেকগুলো অপশন রয়েছে যেমনঃ মাস্টার কার্ড, ভিসা কার্ড, ব্যাংক ট্রান্সফার, ক্রিপ্টোকারেন্সি। রয়েছে তাদের স্ট্রং সিকিউরিটি, ডিডস অ্যাটাক থেকে সম্পূর্ণ নিরাপত্তা ব্যবস্থা সহ দিনে ২৪ ঘন্টা সপ্তাহে ৭ দিন ইমেল, ফোন কল বা লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে প্লাটফর্ম সম্পর্কিত যেকোন সমস্যার সমাধান দেওয়া। ট্রাস্ট পাইলট অর্থাৎ অনলাইন রিভিউ এই প্লাটফর্মটি CEX.IO কে রেটিং এ ৪.৭/৫ দিয়েছে।  Bitdegree রেটিং ৮.৪/১০ প্রদান করেছে।


এছাড়াও আপনি যদি ওয়েব ভার্সন ব্যবহার করেন তাহলে মার্জিন ট্রেডিং এবং স্ট্যাকিং করতে পারবেন।


কেন CEX.IO ব্যবহার করবো না? ( Why not use CEX.IO?)


নতুনদের জন্য এটা একদমই ব্যবহারযোগ্য না কারন এটার সার্ভিস এবং মিনিমাম ইনভেস্টমেন্ট খুবই ব্যয়বহুল। তাই যারা এই সেক্টরে নতুন রয়েছেন তাদের বলব এটি পরিহার করার জন্য।


কিভাবে CEX.IO ব্যবহার করব? (How to use CEX.IO?)


গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশনটি নামিয়ে আপনার সঠিক নাম ঠিকানা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে নিন। এরপর আপনার আইডেনটিটি ভেরিফাই করে নিন। কারণ আইডেন্টিটি ভেরিফাই করা ছাড়া আপনি ট্রেড বা ডিপোজিট কিছুই করতে পারবেন না।

 প্লাটফর্মে আপনি ট্রেড শুরু করার আগে অবশ্যই তাদের ট্রামস এন্ড কন্ডিশন গুলো পড়ে নিবেন এছাড়াও কিরকম ফি প্রদান করতে হয় কোন কোন ক্ষেত্রে সেটিও জেনে নিবেন। তাহলে আপনার জন্য এই প্লাটফর্মে ট্রেড করা খুবই সহজ হয়ে যাবে।


বিশেষ সতর্কীকরণঃ এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় তথ্য ইন্টারনেটের বিভিন্ন সোর্স এবং ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার আলোকে নেওয়া। কোথাও প্রয়োগ করার আগে বিস্তারিত জেনে নিজ দায়িত্বে করার অনুরোধ রইল। 

 

No comments